Monday , January 17 2022

শুধু ভালো ফল নয় ভালো মানুষ হওয়ার পরামর্শ শিক্ষামন্ত্রীর

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, মহামারী করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও শিক্ষা ব্যবস্থাকে এগিয়ে নেয়ার প্রচেষ্টা অব্যাহত আছে। ছাত্রছাত্রীদের অনলাইনে ক্লাস নেয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে অভিভাবক ও শিক্ষকরা যথেষ্ট ভূমিকা রাখছেন। করোনা পরিস্থিতি থাকাকালীন সামনের দিনগুলোতেও অনলাইনে লেখাপড়া অব্যাহত রাখতে অভিভাবকদের ভূমিকা অপরিসীম। শিক্ষার্থীদের শুধু ভালো ফল নয় ভালো মানুষ হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

Dipu moni
dipu-moni

ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) উদ্যোগে বুধবার ‘বাংলাদেশে উচ্চশিক্ষা : বাস্তবতা ও চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক আলোচনা ও কৃতী শিক্ষার্থী সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। অনুষ্ঠানে তিনি ভার্চুয়ালি যুক্ত হন। এতে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন।

শিক্ষা সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, সরকার শিক্ষার গুণগত মানবৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। বিদ্যমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ক্লাসের সিলেবাস তৈরি করা হচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পরীক্ষা নিয়ে গুজব রটানো হচ্ছে। এতে কান না দেয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, পরিস্থিতি অনুযায়ী যথাসময়ে অভিভাবকদের সব জানানো হবে।

নর্থসাউথ ইউনিভার্সিটির বিওটি চেয়ারম্যান এমএ কাসেম বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে রাখা যাচ্ছে না। কিন্তু একজন শিক্ষার্থী যদি এভাবে বেশিদিন পাঠগ্রহণ থেকে দূরে থাকে তাহলে তা মেধা বিকাশে বাধা হয়ে যাবে। এজন্য শিক্ষার্থীদের অনলাইন শিক্ষায় উৎসাহিত করতে হবে। শিক্ষায় গতি ফিরিয়ে আনতে হবে।

এমএ কাসেম বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রযুক্তির ব্যবহার করে আমরা মার্চ থেকে অনলাইনে আমাদের ক্লাস চালু রেখেছি। তিনি সরকারের শিক্ষা খাতে ডিজিটাল পদ্ধতি গ্রহণের প্রশংসা করেন ও কিভাবে জাতি এর সুফল ভোগ করছি তার উপর আলোকপাত করেন। পাশাপাশি বলেন, যে কোনো ব্যবস্থায় চ্যালেঞ্জ থাকতেই পারে। তাই এ নিয়ে কোনো চ্যালেঞ্জ থাকলে সেটা উত্তরণের পথ খুঁজতে হবে। তিনি শিক্ষার্থীদের বলেন, তোমাদের মনের জোর রাখতে হবে, মনোবল হারালে চলবে না, নিজেদের এবং পরিবারের যত্ন নিতে হবে এবং নিজের কাজ ভালোভাবে করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিআরইউ সভাপতি রফিকুল ইসলাম আজাদ। বক্তৃতা করেন ডিআরইউর সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুরসালিন নোমানী, সাবেক অর্থ সম্পাদক জিয়াউল হক সবুজ, কল্যাণ সম্পাদক খালিদ সাইফুল্লাহ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ বিভাগের পরিচালক জামিল আহমেদ। এতে সদস্যদের এসএসসি, জেএসসি ও পিইসি উত্তীর্ণ কৃতী ৮২ সন্তানকে সম্মাননা দেয়া হয়। এদের মধ্যে পিইসি উত্তীর্ণ ৫৩ জন, জেএসসি উত্তীর্ণ ১৬ জন এবং এসএসসি উত্তীর্ণ ২৩ জন। এ কার্যক্রমে সহায়তা করেছে নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়। অনুষ্ঠানে সিনিয়র সাংবাদিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

About Staff Reporter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *