Tuesday , October 19 2021

অনার্স ফাইনাল পরীক্ষার খাতায় যেভাবে লিখলে বেশি নম্বর পাওয়া যায়

 টপিক্সঃ ফাইনাল পরিক্ষায় উত্তর উপস্থাপন, লেখার সময়, লেখার কায়দা।🎯
সামনে আপনাদের ফাইনাল পরিক্ষা।আমি আগে একবার বলেছি যে , ১ম ও ২য় বর্ষ হচ্ছে গোল্ডেন বর্ষ । এই দুই বর্ষে ৩.০০ আপ রাখা ব্যাপার না ।

national university
national university

 

কথা বলবো প্রশ্নের উত্তর উপস্থাপনের কিছু কায়দা কানুন নিয়ে।
আপনি খুব ভালো প্রিপারেশন নিয়েছেন তবে খাতাতে উপস্থাপন করতে পারেন নাই তাহলে পুরাটাই পানি হয়ে গেল। গ্রুপেই অনেকে বলে ভাই লেখছি তবুও মার্ক দেয় না!!!
আসলে লিখলে হয়না, লেখার কায়দা আছে।👇
যাই হোক আপনাদের বলে রাখি. . .
👉১০০ মার্কের মধ্যে ৪০ পেলে পাশ।
⏭ ৪ ঘন্টার পরিক্ষা।
✔৮০ মার্কের পরিক্ষা হবে। 👉৩২ পেলে পাশ।
✔২০ মার্ক ইনকোর্স পরিক্ষা যা আপনার কলেজের হাতে।
👉এটাতে ৮ পেলে পাশ। কম বেশি সকলকেই এই মার্ক দিবে কলেজ।কারন এই মার্ক না দিলে আপনার রেজাল্ট আসবেই না ।👇
⭕৬০ মার্ক পেলে ৩.০০ বা B গ্রেড যাকে 1st Class ধরা হয়। ⭕
প্রশ্নের ৩টা ক্যাটাগরি থাকবে।
⭕ক বিভাগে ১২টা থাকবে 👉১০টা দিতে হবে।প্রতি প্রশ্নের মান ১।
▶মার্ক ১×১০=১০
⭕খ বিভাগে ৮টা থাকবে ৫টা দিতে হবে।
প্রতি প্রশ্নের মান ৪।
▶মার্ক ৫ ×৪=২০
⭕গ বিভাগে ৮টা প্রশ্ন থাকবে ৫টা দিতে হবে।
প্রতি প্রশ্নের মান ১০
▶মার্ক ৫ ×১০=২০
এটা ছিল মানবন্টন।আপনি সিফাতের কথা বা তাকে হুবাহু ফলো করিয়েন না। সিফাত বলে নাই যে করতে হবে। আপনি আপনার টিচারকে ফলোকরতে পারেন সমস্যা নাই। বিষয়টা জানিয়ে রাখলাম ।পরে কমেন্টে কোন অজুহাত দেখাতে পাবেন না । আর একটা কথা সম্পূর্ণ পোষ্ট পড়ে কমেন্ট করবেন।

💕যেভাবে ক বিভাগের অতি সংক্ষিপ্ত লিখবেন 👇
✔অতি সংক্ষিপ্ত অর্থ এক কথায় উত্তর দাও।

প্রশ্ন যা চাবে তাই দিবেন।
⏭ উদাহরনঃ কুতুবমিনার কে তৈরি করেন ?
উত্তরঃ কুতুবউদ্দিন আইবেক।
উত্তর শেষ । যদি চিত্র বা গণিত কিছু আছে তাহলে যাস্ট উত্তর লিখে শেষ করে দিবেন।এইখানে যদি বানান বা কার চিহ্নের ভূল হলেও মার্ক কাটা চলে যাবে।✖
একদম লেখা স্বচ্ছ ও ঝকঝকে হবে।যাতে ১বার দেখলে আর দেখা না লাগে। যদি ১২টা কমন পড়ে তবে অনেকে ১২টাই লিখে দেয়। আমি খাতা পড়ছি।তখন টিচার ১ম ১০টা কাউন্ট করে। যদি ঐখানে ১টা ভূল হলেও ৯ পাবেন ।শেষের ২টা যোগ হবে না না এবং না।✖
✔যেভাবে খ বিভাগের সংক্ষিপ্ত লিখবেন. 👇
🔮সবার আগে ১টা কথা বলে রাখি. . .
খ বিভাগে কিছু ক্যাটাগরিতে প্রশ্ন হয়ে থাকে। যেমন , সংজ্ঞা লেখ, বুঝিয়ে লেখ, কী , কেন , কীভাবে ,কাকে বলে ,সংক্ষেপে লেখ ইত্যাদি।
যেমন প্রশ্নের ক্যাটাগরি আছে তেমন উত্তরের ক্যাটাগরি আছে। সবাইকে ডালভাত ভাবলে চলবে না ।
👉যদি কাকে বলে ,কী বা সংজ্ঞা টাইপের প্রশ্ন আসে তাহলে. . . 👇
শুরুতে ভূমিকা লিখতে হবে এবং বাধ্যতামূলক লিখতে হবে।ভূমিকা হবে একদম চমৎকার ।যাতে টিচার দেখে ক্রাশ খায় আর বুঝতে পারে যে এই স্টুডেন্টের এই প্রশ্ন সম্পর্কে ধারনা আছে।৩ থেকে ৪ লাইন হবে ভূমিকা।ভূমিকাতে টা সাধারন সংজ্ঞা থাকবে।
এরপর ৪টা প্রমাণিক সংজ্ঞা। বিভিন্ন বিজ্ঞানিদের সংজ্ঞা।সংজ্ঞা আপনি ইংরেজি বাংলা উভয়ে লিখতে পারেন।✔
এরপর কচিকরে উপসংহার লিখে ছেড়ে দিবেন। মনে রাখবেন আপনি যদি ভূমিকা উপসংহার না লিখেন তাহলে ১মার্ক
❓কত পেজ লিখবেন ?
এই ধরনের প্রশ্ন আপনি ১পাতা লিখবেন। ১পাতা বলতে দুইটা পৃষ্ঠা বা এপিট ওপিট বুঝায়।বেশি লিখলে সমস্যা নাই।
⭕বর্ণনামূলক ক্যাটাগরির প্রশ্নের ক্ষেত্রে. . . 👇
বর্ণনামূলকের ক্ষেত্রে ভূমিকা উপসংহার তো থাকবেই মাঝে মূল কথা লিখতে হবে। মূল কথাতে যদি পয়েন্ট থাকে তবে প্যারা আকারে লিখা যাবে।সব পয়েন্টের নাম্বারিং হবে। নাম্বারিং (ক) বা (১) এর ধারায় দিবেন ।পয়েন্টের নিচে আন্ডারলাইন থাকবে। কোনা কালার পেন ব্যবহার করে সময় নষ্ট করবেন না। এই প্রশ্নে ৫ থেকে ৬টা পয়েন্ট যথেষ্ট।তবে ১টা পয়েন্ট ৪লাইনের বেশি রাখতে চেষ্টা করবেন।
এখন ৪লাইন বলছি তাই বলে ১লাইনকে ৪টা করলে ধরা খাবেন।খাতায়া মার্জিন থাকবে ১স্কেল করে।১ পৃষ্টাতে সাধারনত ১৪ টা লাইন ধরে। আপনি পরিক্ষা উপলক্ষে ৫লাইন লেখলে ৩.০ এর মুখ দেখা লাগবে না। আপনি পরিমান মত ফাঁক দিয়ে ১১ বা ১০ লাইন লিখবেন। মনে রাখবেন আপনার খাতা ১জন BCS ক্যাডারের হাতেও পরতে পারে।
❓কত পেজ লিখবেন ?
কচিকরে এই ক্যাটাগরির প্রশ্ন ২পাতা বা ৪ পৃষ্ঠা লিখতে হয়। ১টা পৃষ্টাতে ১টা পয়েন্ট শেষ আর আরেকটা শুরু হবে। এমন তালমিল থাকবে। অর্থনীতি বা গণিত ইত্যাদি বিভাগের যদি ভূমিকা উপসংহার না থাকে তবে তারা লিখবেন না।আর আপনাদের উত্তর যদি ১পৃষ্ঠার হয় তবে ওটাই লিখবেন।
⭕যেভাবে লিখবেন গ বিভাগ রচনামূলক. . .👇
মাথায় রাখবেন মার্ক কিন্তু দশ। আপনি যতই ভালো লিখেন ১০ এ ১০ আপনাক দিবেনা✖। সর্বচ্চো ৯ বা ৮ ।
আপনার ভালো রেজাল্টের ক্ষেত্রে মূল ভূমিকা এই বিভাগের !💕
এই বিভাগে আপনার নুন্যতম ৩টা প্রশ্ন টু কপি কমন নাইগবে বাহে ।😋
এই বিভাগকে বিশ্লেষণ, ব্যাখ্যা , ভূমিকা, প্রভাব, ইত্যাদি টাইপ প্রশ্ন থাকে।
অনেক সময় দুই পার্টো থাকে।
👉যেমনঃ অর্থনীতির সংজ্ঞা দাও। অর্থনৈতিক ব্যবস্থাগুলো আলোচনা কর।
এই বিভাগের ভূমিকা ১টু বড় রাখলে ভালো হয়।
পাগলের মত শুধু লিখেই যাবেন তাহলে লাভ নাই।✖
প্রশ্ন লেখার আগে বুঝবেন যে এই প্রশ্ন কত পয়েন্ট আছে !
যদি পয়েন্ট কম থাকে তবে আপনার পয়েন্টের সাইজ বড় হবে।
আর পয়েন্ট অনেক থাকলে পয়েন্টের সাইজ ছোট হবে পয়েন্ট বেশি হবে। ১ম এর দিকের পয়েন্ট গুলা যাতে বই রিলেটেড থাকে। শেষে বানায়া দিতে পারেন। পয়েন্টে নাম্বারিং হবে।
তবে প্রমাণ মূলক প্রশ্নে বানাতে তো পাবেন না।তাই যা উত্তর তাই দিতে হবে।
১ পৃষ্ঠায় ২টার বেশি পয়েন্ট রাখবেন না শুরুর দিকে।
১টা প্রশ্নে ভূমিকা উপসংহার বাদে কম করে ১২ থেকে ১৩টা পয়েন্ট থাকবে। বেশি রাখলে আপনার লাভ।
এই প্রশ্ন ১০ পৃষ্ঠা বা ৫ পাতার ১টু কম বেশি হয়। যাতে টিচার পড়ে মার্ক দিলে ৭ আর পাতা গুনে দিলে যাতে ৭ থাকে। আপনার ৫টা কমন থাকলে কথাই নাই।তবে ৩টা কমন লাগবে।যাতে খাতা দেখার সময় স্যার মনে করে ছাত্র বা ছাত্রীটা ১টা মাল ! বাসায় পড়ে ।
লাখার সাইজ মাঝারি থাকবে।লেখা বাজে থাকুক তবুও যাতে বুঝা যায়. .ধরা যায়। পয়েন্ট ১টু বড় করে লিখে কালো কলম দিয়ে নিচে দুটা আন্ডার লাইন করে দিলে হবে

About Staff Reporter

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *